বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়ায় দিশেহারা জামালপুরের কৃষকরা

0
70

শামীম আলম:

বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন জামালপুরের কৃষকরা। দফায় দফায় ওষুধ-কিটনাশক দিয়েও বন্ধ করা যাচ্ছেনা ব্লাস্টের আক্রমণ।

বছরের প্রধান ফসলের ফলন বিপর্যয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন জেলার অনেক কৃষক।বৈরি আবহাওয়ার কারণে ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানান কৃষি কর্মকর্তারা ।

ধান ক্ষেতের দৃশ্য দেখে মনে হতে পারে পাকা ধানে ভরে আছে বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলী জমি। কিন্তু বাস্তবে জামালপুরে কৃষকের ভরা ক্ষেতের প্রতিটি ধানের শীষ চালহীন শুকনো চিটায় ভরে গেছে।

মরণঘাতী ব্লাস্টরোগ এবার জামালপুর জেলাজুড়ে একরের পর একর ধান ক্ষেত ধস করেছে। ধার-দেনা করে একটু লাভের আশায় এই অঞ্চলের কৃষকরা চাষ করেছিল ব্রি-২৮ জাতের বোর ধান। কিন্ত ধান ঘরে উঠার আগ মূহুর্তে ব্লাস্ট রোগ তাদের সর্বনাশ ডেকে এনেছে।

দফায় দফায় ওষুধ ছিটিয়েও কোন কাজ হয়নি। তাই অনেকেই মরে যাওয়া শীষের ধান কেটে ফেলছেন গো-খাদ্য হিসেবে। গেল বন্যায় আমন ফসল নষ্ট হবার পর কৃষকের ভরসা ছিল বোরো আবাদ। কিন্তু ব্লাস্ট রোগে প্রধান ফসলটিও হারিয়ে কৃষকরা এখন দিশেহারা।

বৈরি আবহাওয়ার কারণে ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়ে পড়েছে বলে জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম জানান। এ কৃষি কর্মকর্তা আরো জানিয়েছেন, রোগ যাতে আরো ছড়াতে না পারে সেজন্য কাজ করে যাচ্ছেন তারা।

চলতি মৌসুমে জামালপুরে বোর আবাদ হয়েছে ১ লাখ ৩১ হাজার হেক্টর জমিতে। তারমধ্যে ব্রি ২৮ জাতের ধান আবাদ হয়েছে ৪৭ হাজার হেক্টরে।