ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাজার হাজার মানুষের জমায়েত খুব ক্ষতিকর হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

0
386

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে একটি জানাজা হাজার হাজার মানুষের জমায়েত খুব ক্ষতিকর হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেছেন, এতে ঝুঁকি তৈরি হলো। অনেক লোক আক্রান্ত হতে পারে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জানাজায় লোকসমাগম নিয়ন্ত্রণে প্রশাসন ব্যর্থ হয়েছে। জানাজায় অংশ নেওয়া ব্যক্তিরা অনেকেই বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে এখনই প্রশাসনের নজরদারি জরুরি।

রোববার দুপুরে অনলাইন ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রসঙ্গত, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় জ্যেষ্ঠ নায়েবে আমির যোবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় বিপুলসংখ্যক মানুষের সমাগম হয়। এই ঘটনায় ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগে সরাইল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ও সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনা তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পুলিশ সদর দপ্তর। কমিটিকে ২২ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

প্রত্যাহার করা দুজন হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সরাইল সার্কেল)মাসুদ রানা ও সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক( মিডিয়া) সোহেল রানা জানান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঙ্কজ কুমার (অপরাধ) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন (প্রশাসন)।

একটি সূত্র জানিয়েছে, এ ঘটনায় সরাইল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নুরুল হককে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল থানার বেড়তলা জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে ১৮ এপ্রিল সকাল ১০টায় মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রিন্সিপাল মাওলানা আল্লামা জুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় হাজার হাজার লোকের সমাগম হয়। মানুষের ভিড় মাদ্রাসার সীমানা ছাড়িয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে গিয়ে ঠেকে। আনসারী শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের মার্কাসপাড়ায় নিজের বাসায় মারা যান। তিনি ১৯৯৬ সালে সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে হেরে যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর।