ভারতের রাজধানী দিল্লি নয় দাবি

0
51

কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকার ক্রমবর্ধমান দ্বৈরথে এবার নয়াদিল্লি ভারতের জাতীয় রাজধানী কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বুধবার সুপ্রিম কোর্টে এই প্রশ্ন ওঠায় দোটানায় পড়েছে ভারতের শীর্ষ আদালত।

কারণ এখানে প্রশ্ন ওঠে রাজধানী দিল্লিতে কোন সরকারের কর্তৃত্ব চলবে? ‌সেখানে অরবিন্দ কোজরিওয়াল সরকার পক্ষের আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিং বলেন, ভারতীয় সংবিধান থেকে ভারতীয় আইনের কোথাও উল্লেখ নেই নয়াদিল্লি ভারতের জাতীয় রাজধানী।

যা শুনে দোটানায় পড়ে যায় ভারতের সর্বোত্তম আদালতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, একে সিক্রি, এএম খানউইলকর, ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এবং অশোক ভূষণের পাঁচ সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ।

এদিন এই পাঁচ সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চের সামনে ইন্দিরা জয়সিং দাবি করেন, ‘‌আইন কোথাও বলে দেয়নি রাজধানী কোনটা হবে।

আগামীকাল কেন্দ্রীয় সরকার সিদ্ধান্ত নিতেই পারে রাজধানী অন্য কোথাও সরিয়ে নিয়ে যাবে। এমনকী সংবিধানের কোথাও বলা হয়নি যে ভারতের রাজধানী হল দিল্লি।

আমরা জানি ব্রিটিশ আমলে কলকাতা থেকে দিল্লিতে রাজধানী সরিয়ে আনা হয়েছিল। এখানে ন্যাশানাল ক্যাপিটাল অফ দিল্লি অ্যাক্টও রয়েছে। কিন্তু দিল্লি ভারতের রাজধানী হিসাবে কোথাও গঠন করা হয়নি।’‌ তিনি আদালতের সামনে এই তথ্য তুলে ধরেছেন কেন্দ্র এবং দিল্লি সরকারের মধ্যে ক্ষমতার সঠিক ভাগাভাগির দাবিতে।

তিনি বলেন, দিল্লির সরকার হল একই জাহাজে দুটি ক্যাপটেন। সেক্ষেত্রে ঝামেলা এড়িয়ে এগিয়ে যাওয়াই লক্ষ্য হওয়া উচিত। তার জন্য চাই পরিষ্কার প্রশাসনিক ক্ষমতার ভাগাভাগি।

সম্প্রতি দিল্লি হাইকোর্ট রায় দিয়েছিল রাজধানীতে প্রশাসনিকভাবে উপ–রাজ্যপালই প্রধান। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যায় অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার। যার ফলে এই কেঁচো খুড়তে কেউটে বেরিয়ে পড়ল বলে মনে করা হচ্ছে। ‌‌