ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে বাংলাদেশের অংশীদার হতে চায় ভিয়েতনাম

0
90

ভিশন-টোয়েন্টি টোয়েন্টিওয়ান বাস্তবায়নে বাংলাদেশের অংশীদার হতে চায় ভিয়েতনাম। বাংলাদেশে এ জন্য বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে দেশটি।

সফররত ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট ত্রান দাই কুয়াং রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানিয়ে বলেন, ২০২০ সাল নাগাদ বাংলাদেশ ভিয়েতনাম বাণিজ্যের পরিমাণ ২ বিলিয়ন ডলারে উন্নিত হবে।

এসময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ নির্মানাধীন অর্থনৈতিক অঞ্চল সমূহে ভিয়েতনামকে বিনিয়োগের আহবান জানান।

মঙ্গলবার হোটেল সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম বিজনেস ফোরাম’র আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বাংলাদেশে সফররত ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট ত্রান দাই কুয়াং।

বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই), ভিয়েতনামের পরিকল্পনা ও উন্নয়ন মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশে ভিয়েতনামের দূতাবাস যৌথভাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

তিনদিনের সফরে আসা ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট এ অনুষ্ঠানে সে দেশের ১০০টি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ভিয়েতনামকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি বাংলাদেশে বিনিয়োগের বিভিন্ন সুবিধা তুলে ধরেন।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৬৬ দশমিক ৪৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য ভিয়েতনামে রফতানি করেছে। ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করেছে ৪১২ দশমিক ২০ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য বাড়ানোর বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে।

এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম এবং সহ-সভাপতি মো. মুনতাকিম সভায় অংশ নেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের ব্যবসায়ী নেতাদের মধ্যে আলোচনাপর্বে ভিয়েতনামের পরিকল্পনা ও উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী গুয়েন চি ডাং এবং শিল্প ও বাণিজ্য উপমন্ত্রী চাও কুয়োক হাং অংশ নেবেন।

আলোচনাপর্বে বাংলাদেশের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম. আমিনুল ইসলাম বক্তব্য রাখবেন। এ পর্বে দুই দেশের ব্যবসায়ী নেতারাও আলোচনায় অংশ নেবেন।