মাহবুব সৈকত :

রান্নার অন্যতম উপাদন ভোজ্য তেল। শারীরিক সুস্থ্যতায় তেল প্রয়োজনীয় উপাদান হলেও, কিছু অসাধু মানুষের কারণে ঘটছে বিপরীত চিত্র। ভেজাল তেল ব্যবহারের ফলে শরীরে বাসা বাধছে নানা রোগ ব্যাধি। চকচকে মোড়ক আর বাহারি নাম থাকলেও অনেক তেলে ধরা পড়ছে প্রায় ৮০ ভাগ পর্যন্ত ভেজাল। বিষয়টি আয়ত্বের বাইরে যাবার আগেই নজরদারী বাড়ানো পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

মানুষের বেচে থাকার জন্যে খাদ্য অপরিহার্য, আর বেশির ভাগ খাবারই প্রস্তুত বা রান্না প্রক্রিয়ার অন্যতম উপাদন ভোজ্য তেল। নিয়মিত খাদ্য গ্রহণ করে সুস্থ্য, সবল থাকার কথা থাকলেও বাস্তবতায় ঘটছে বিপরীত ঘটনা। ভেজাল খাবারের ফলে ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পরছে নানাবিধ রোগব্যাধি।

গেল কয়েক বছরে ভোজ্য তেল নিয়ে গণস্বাস্থ্য ইনিস্টিটিউটের এক গবেষনায় উঠে এসেছে ভয়াবহ তথ্য, বাজারজাত করা হচ্ছে ভেজাল অনিরাপদ ও অস্বাস্থ্যকর তেল।

কিছুটা কমদামে খোলা তেল যেমন রয়েছে, আবার চকচকে মোড়কে বাহারি বিভিন্ন নামেও রয়েছে ভোজ্য তেল। আর সামর্থ অনুযায়ী প্রয়োজনের তাগিদে ক্রয় করছেন ক্রেতারা। যদিও কতটুকু ভেজাল মুক্ত এ প্রশ্ন রয়েছে সবারই।

অতি মুনাফার লোভে যারা জনস্বাস্থ্যকে ঠেলে দিচ্ছে মৃত্যুর দিকে তাদের থামিয়ে দিতেও পদক্ষেপ নেয়ার আকুতি সাধারনেরবিক্রেতারা বলছেন তাদের পরিবারও ব্যবহার করেন এই তেল, তাই তারাও চান ভেজাল মুক্ত পন্য আসুক বাজারগুলোতে।

এ বিষয়ে সচেতনতা এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোর নজরদাবী আরো বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
মাননিয়ন্ত্রনকারী সংস্থা বিএসটিআইয়ের দাবী ভেজালের বিরুদ্ধে তৎপর তারা।