ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মিরপুর বস্তি ভস্মিভূত

0
61

মিরপুর ১২ নম্বরে ইলিয়াছ মোল্লা বস্তিতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ২৩টি ইউনিট প্রায় ৫ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে সকাল সাড়ে ৭টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ভোর ৪টার দিকে আগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা করে। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় আরো ৯টি ইউনিট তাদের সঙ্গে যোগ দেয়। স্থানীয়রা জানায়, ৭ থেকে ৮ হাজার টিন এবং কাঠের তৈরি ঘর ছিল বস্তিতে। আগুনে বেশিরভাগ ঘরই পুড়ে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি।

তাৎক্ষণিকভাবে কারও নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তবে আহত একজন নারীকে ভর্তি করা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল বলেন, ‘এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে তাঁদের ২৩ টি ইউনিট কাজ করে। সকাল ৭টা ২০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।’ আগুন নিয়ন্ত্রণে বেশ বেগ পেতে হয়েছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ঘটনাস্থলে আসার রাস্তাগুলো এতই সরু যে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি পৌঁছাতে অনেক সময় লেগে যায়। এরপর তখন অনেক বাতাসও ছিল।’

আগুনের সূত্রপাত এবং দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার বিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘বস্তিটিতে যারা থাকত তাঁদের বেশির ভাগই পোশাক কারখানায় কাজ করে। প্রায় সবার ঘরেই পোশাকের ঝুট এবং প্রচুর পরিমাণে দাহ্য বস্তু ছিল। যার ফলে আগুন খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনা তদন্তে শিগগিরই কমিটি গঠন করা হবে।’

হতাহতের বিষয়ে জানতে চাইলে মেজর শাকিল বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ১জন নারীর আহত হওয়ার খবর পেয়েছি। তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। হতাহতের বিষয়ে বিস্তারিত আরও পরে জানা যাবে।’

স্থানীয় সাংসদ ইলিয়াছ আলী মোল্লা  জানান, বস্তিতে থাকা প্রায় সব ঘরই আগুনে পুড়ে গেছে। এসব ঘরে প্রায় ২৫ হাজারের মতো মানুষ বসবাস করত। তিনি বলেন, ‘ক্ষতিগ্রস্তদের সব রকমের সাহায্য করা হবে। প্রাথমিকভাবে তাঁদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে।’ এ ছাড়া যাদের ঘর পুড়ে গেছে তাঁদের পুনর্বাসনের আশ্বাস দেন স্থানীয় এই সাংসদ।

বস্তির বাসিন্দা শাহ আলমের ভাষ্যমতে রোববার দিবাগত রাত ৩টার কিছু আগে তাঁরা আগুন দেখতে পান। সেসময় ঘর থেকে দ্রুত বেরিয়ে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিতে পারলেও ঘরের মালামাল উদ্ধার করতে পারেননি। বেশির ভাগ বস্তিবাসীর দশাই তাঁর মতো বলেই তিনি জানান।

এর আগে, মিরপুর ১২ নম্বরে ইলিয়াছ মোল্লা বস্তিতে রোববার দিবাগত রাত ৩ টায় আগুন লাগে। আগুন লাগার পর তা খুব দ্রুত পুরো বস্তি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ৩টার দিকে আগুন লাগার খবর পায় ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ। এর পরপরই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। শুরুতে ১৪টি ইউনিট কাজ করলেও পর্যায়ক্রমে আরও ৯টি ইউনিট তাঁদের সঙ্গে যোগ দেয়। প্রায় ৭০ বিঘা জমির উপর গড়ে ওঠা বস্তিটিতে ৭ থেকে ৮ হাজার টিন এবং কাঠের তৈরি ঘর ছিল।