মন্ত্রিসভায় রদবদল, দফতর পেলেন নতুন তিন মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রী

0
114

দপ্তর পেলেন মন্ত্রী সভায় যুক্ত হওয়া নতুন তিন মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রী। আর রদবদল হলো দফতরের। নারায়ন চন্দ্র চন্দকে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, শাহজাহান কামালকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয় এবং মোস্তফা জব্বারকে দেয়া হয়েছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পূর্ণ মন্ত্রীর দায়িত্ব। এছাড়া কাজী কেরামত আলীকে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান মন্ত্রী পরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

সরকারের শেষ দিকে এসে নতুন বছরের শুরুতেই মন্ত্রী সভায় যুক্ত হলেন নতুন চার সদস্য। শপথ নেয়ার একদিন পরেই তাদের মধ্যে বন্টন করা হলো মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব। সচিবালয়ে নতুন মন্ত্রীদের দপ্তর বন্টন এবং পুরনোদের দপ্তর পূর্নগঠনের কথা জানান মন্ত্রী পরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

লক্ষীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শাহজাহান কামালকে দেয়া হয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রলায়ের পূর্ণ মন্ত্রী দায়িত্ব। এই মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বে থাকা মন্ত্রী রাশেদ খান মেননকে দেয়া হয়েছে সমাজ কল্যান মন্ত্রনালয়ে।

পানিসম্পদ মন্ত্রনালয় থেকে সরিয়ে আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে দেয়া হয়েছে পরিবেশ ও বন মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব। আর এই মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বে থাকা আনোয়ার হোসেন মঞ্জুকে দেয়া হয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব। মৎস ও প্রণিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা নারায়ন চন্দ্র চন্দই পেয়েছেন এই মন্ত্রনালয়ের পূর্ণমন্ত্রীর দায়িত্ব।

মন্ত্রীসভায় যুক্ত হওয়া নতুন সদস্যদের মধ্যে আইসিটি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বারকে ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী করা হয়েছে। এছাড়া  রাজবাড়ী-১ আসদেরন সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীকে দেয়া হয়েছে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাদ্রাসা ও কারিগরি বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব।

পুরোনো মন্ত্রসভার সদস্যদের মধ্যে ডাক টেলিযোগাযোগ প্রতিমস্ত্রী তারানা হালিমকে করা হয়েছে তথ্য মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী