মহান একুশের চেতনায় ঐক্যবদ্ধ থাকুন : একুশে পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

0
130
রাকিব হাসান : মহান একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, মাথা উঁচু করে বাঙালীকে বাঁচতে শিখিয়েছে একুশ, মহান ভাষা আন্দোলন। সেই ইতিহাস থেকেও বঙ্গবন্ধুর ভূমিকা মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছিলো। একুশে পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।
বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরষ্কার একুশে পদক। জাতি গঠনে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ ১৯৭৬ সাল থেকে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হচ্ছে এ পদক। এরই ধারাবাহিকতায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে এবার ১২ ক্যাটাগরিতে মোট ২১ জন বিশিষ্ট নাগরিক ভুষিত হলেন এ সম্মানে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মনোনীত ব্যক্তিদের হাতে পদক ও সনদ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
পদক প্রাপ্তরা হলেন,
ভাষা আন্দোলনে – অধ্যাপক হালিমা খাতুন, অ্যাডভোকেট গোলাম আরিফ টিপু ও অধ্যাপক মনোয়ারা ইসলাম।
শিল্পকলা সংগীতে – সুবীর নন্দী, খায়রুল আনাম শাকিল এবং মরনোত্তর আজম খান।
শিল্পকলা অভিনয়ে – লাকী ইনাম, সুর্বণা মুস্তাফা ও লিয়াকত আলী লাকী।
শিল্পকলা আলোকচিত্রে – সাইদা খানম।
শিল্পকলা চারুকলায় – জামাল উদ্দিন আহমেদ।
মুক্তিযুদ্ধে- ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্য।
গবেষণায় ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ ও ড. মাহবুবুল হক।
শিক্ষায়- ড. প্রণব কুমার বড়ুয়া।
ভাষা ও সাহিত্যে – রিজিয়া রহমান, ইমদাদুল হক মিলন, অসীম সাহা, আনোয়ারা সৈয়দ হক, মইনুল আহসান সাবের ও হরিশংকর জলদাস।

পরে পদক প্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। তুলে ধরেন ভাষা আন্দোলনে আত্মত্যাগী সূর্যসন্তানদের আত্মত্যাগের কথা। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরই রাষ্ট্রভাষা বাংলার মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এসে বন্ধ করে দেয় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট।

একুশের চেতনা ধারন করেই ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষার পাশাপাশি দেশ গঠনের কাজে এগিয়ে আসতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।