মার্চের শেষে দেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ

0
126

বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মার্চের শেষদিকে উৎক্ষেপণ হতে যাচ্ছে। প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার এই স্যাটেলাইটে সংকেত আদান-প্রদানে থাকছে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার। এর মধ্যে বাংলাদেশ ব্যবহার করবে ২০টি। বাকিগুলো ভাড়া দেয়া হবে।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে উৎক্ষেপণের কথা থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রে ঝড়ের কারণে তা পেছানো হয়। তবে মার্চেই দেশের পতাকা নিয়ে মহাকাশে যাবে এটি। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে এর অবকাঠামো ও গ্রাউন্ড স্টেশন তৈরির কাজ। এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ও সম্প্রচার সেবার পাশাপাশি টেলিমেডিসিন ও ডিটিএইচ সেবা পাওয়া যাবে।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, এটিতে ৩টি অংশ আছে। একটি হচ্ছে স্যাটেলাইট নিজে এবং উৎক্ষেপণ যেটা করবে সেটা একটা রকেট আর সর্বশেষ গ্রাউন্ড স্টেশন যেখান থেকে রিসিভ করবে । এর মধ্যে স্যাটেলাইট নির্মাণ শেষ হয়ে গেছে। আর এখন পর্যন্ত আমাদের হাতে যে তথ্য আছে তাতে করে মার্চের ২৭, ২৮ এবং ২৯ যেকোনো একদিন হতে পারে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের আওতা থাকবে দক্ষিণ এশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন তুর্কমেনিস্তানসহ আশেপাশের দেশ। বর্তমানে দেশীয় টেলিভিশন চ্যানেলগুলো ব্যবহার করছে বিদেশি স্যাটেলাইট। তাই দাম নির্ধারণে দেশি গ্রাহকের কথা বিবেচনায় রাখার কথা জানান কমিশন চেয়ারম্যান।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ আরও বলেন, এই কাভারেজ এরিয়াগুলোর মধ্যে কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ এলাকা বাদ আছে। যে এলাকাগুলো কাভার করতে গেলে আমাদের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নেওয়ার পড়ে আরও কিছু এডিশোনাল সার্ভিস নিতে হবে। এইজন্য আমরা ওই সমস্ত গ্রাহকের দিকে তাকিয়ে এডিশোনাল কস্ট যাতে কমে আসে সেদিকে লক্ষ্য রাখবো।

উৎক্ষেপণের পর ৫৭তম দেশ হিসেবে স্যাটেলাইটের মালিক হবে বাংলাদেশ। সার্কভুক্ত ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলংকা ইতোমধ্যে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে।