মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার আহবান বুদ্ধিজীবী পরিবারের

0
82

স্বাধীনতার এত বছর পর আজও স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি সক্রিয় রয়েছে অভিযোগ করে দেশের প্রতিটি ঘরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানিয়েছেন শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের স্বজনরা।

একই সাথে চক্রান্তকারীদের যারা এখনও বিদেশে পালিয়ে আছে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারকে দ্রুত উদ্যোগ নেয়ার অনুরোধও ছিল তাদের।

একাত্তরের ১৪ ডিসেম্বর, চারদিকে উড়ছে লাল-সবুজের বুকে সোনালী মানচিত্র খচিত স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন ঢাকা জয়।

পরাজয় নিশ্চিত জেনে নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালায় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা।
জাতিকে মেধাশূন্য করতে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের বাসা এবং কর্মস্থল থেকে চোখ বেধে ধরে নিয়ে যায় হানাদার বাহিনী। দিনটি এলেই তাই আজও ভয়ে আতকে উঠেন শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্বজনরা।

ড. মুনীর চৌধুরীর পুত্র আসিফ মুনীর চৌধুরী

৪ বছর বয়সে বাবাকে হারিয়ে বাবার আদর থেকে বঞ্চিত হয়েছেন শহীদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরী আসিফ মুনীর চৌধুরী। তবে বাবার আদর্শকে আজও বুকে ধারণ করে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

বাবার স্মৃতির কথা স্মরণ করে আসিফ বলেন, বাবার স্মৃতি চার বয়সে মনে রাখতে পারিনি। তবে মায়ের কাছে বাবার বিভিন্ন রকম কথা শুনি। আশপাশের মানুষজনদের কাছ থেকে তিনি বাবার সম্পর্কে জানতে পেরে গর্ববোধ করেন বলেও জানান আসিফ মুনির।

দেশের স্বাধীনতাকে ঘিরে যে আকাঙ্খা তৈরি হয়েছিল শহীদ পরিবারের মাঝে তা আজও পুরোপুরি বাস্তবায়ন হয়নি বলে আক্ষেপ শহীদ বুদ্ধিজীবি ডা: আলিম চৌধুরীর সহধর্মীনি শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী। ৭৫ এর পর স্বাধীনতা বিরোধীরা জাতিকে ভিন্ন পথে পরিচালিত করেছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে দেশের প্রতিটি ঘরে মুক্তিযুদ্ধের চেনতা ছড়িয়ে পরবে এমনটাই প্রত্যাশা শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের দুই সদস্য শহীদ মুনীর চৌধুরীরর পুত্র আসিফ মুনীর চৌধুরী ও ডা: আলিম চৌধুরীর সহধর্মীনী শ্যামলী নাসরিন চৌধুরীর।