যেসব নতুন নিয়ম নিয়ে মাঠে ফিরছে ক্রিকেট

0
244

ফুটবল মাঠে ফিরেছে বেশ আগেই। এবার করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে প্রায় চার মাস স্থগিত থাকার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরছে সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট দিয়ে।

তবে মাঠে ফিরলেও করোনার সংক্রমণ এড়াতে খেলায় এসেছে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন। এক নজরে সেসব পরিবর্তনে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক –

করোনা টেস্ট ও করোনা সাবস্টিটিউট: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল‌্যান্ডের ক্রিকেটারদের এরই মধ‌্যে করোনা টেস্ট করানো হয়েছে। স্কোয়াডে থাকা সকলেরই করোনা টেস্ট নেগেটিভ এসেছে। তবে ঝুঁকি এড়ানোর জন‌্য টেস্ট চলাকালীন প্রতিদিন সকলের করোনা টেস্ট করা হবে।

করোনা সাবস্টিটিউট: এটি বেশ কার্যকরী একটি নিয়ম। এই নিয়ম অনুযায়ী টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন কোনো খেলোয়াড়ের মধ্যে করোনা উপসর্গ দেখা দিলে ম্যাচ রেফারির অনুমতি সাপেক্ষে অন্য একজন খেলোয়াড়কে মাঠে নামানো যাবে। এ নিয়ম কেবল টেস্টের বেলায়। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টির জন্য নয়।

দর্শকশূন্য স্টেডিয়াম: স্টেডিয়ামে কোনো দর্শক ঢুকতে পারবেন না। রুদ্ধদ্বার স্টেডিয়ামে খেলা হবে দুই দলের।

নো টু সেভিয়া: বলের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে থুতু কিংবা লালা ব‌্যবহার করতে পারবেন না বোলাররা। শুধুমাত্র ঘাম ব‌্যবহার করতে পারবেন। যদি কেউ ভুল করে থুতু বা লালা ব‌্যবহার করে, আম্পায়াররা দুইবার সতর্ক করবে। এরপর একই ভুল করলে পাঁচ রান পেনাল্টি।

উদযাপনে সীমাবদ্ধতা: সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে করতে হবে সেলিব্রেশন। হাত হাত মেলানো যাবে না। জড়িয়ে ধরার সুযোগই নেই কোনো। যদি উদযাপন করতেই হয় তাহলে কনুইয়ে কনুই মেলাতে হবে।

নিরাপদে আম্পায়াররা: মাঠে সচেতন থাকবেন আম্পায়াররাও। এজন্য বোলারদের ক্যাপ এবং সোয়েটার নিতে অস্বীকার করতে পারবেন আম্পায়াররা। নিজেদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে বোলারদের ব্যবহৃত ক্যাপ ও সোয়েটার গ্রহণ করবেন না আম্পায়ররা। পাশাপাশি রৌদ্র চশমাও নেবেন না আম্পায়াররা।

খেলা পরিচালনা করবেন স্থানীয় আম্পায়ার: এই সিরিজে প্রথম নিরপেক্ষ দেশের আম্পায়ার থাকছে না। করোনাকালীন সময়ে যে কোন দেশ চাইলে স্থানীয় আম্পায়ারদের দিয়েই ম্যাচ পরিচালনা করতে পারবে। তবে প্যানেলভুক্ত আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারিদের মধ্য থেকে আম্পায়ার ও রেফারি ঠিক করে দেবে আইসিসি। জানা গেছে, ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের প্রথম ম্যাচে আম্পায়ারিং করবেন রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ এবং রিচার্ড কেটেলব্রো। আর এ দুজনই ইংল্যান্ডের।

জার্সিতে বাড়তি লোগোর ব্যবহার: আগামী ১২ মাসের জন্য জার্সিতে বাড়তি লোগো ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে আইসিসি। তবে সেটি ৩২ স্কয়ার ইঞ্চির বেশি হতে পারবে না, যা থাকবে খেলোয়াড়দের বুকের মধ্যে। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে এটি ব্যবহার করতে পারলেও, টেস্টে এর অনুমতি ছিল না।

অতিরিক্ত রিভিউ সিস্টেমের অনুমতি: যেহেতু স্থানীয় আম্পায়ারদের দিয়ে ম্যাচ পরিচালনা হবে তাই ভুল সিদ্ধান্তের সংখ্যা বাড়ার শঙ্কা রয়েছে। তাই সব দলের জন্য বাড়তি একটি রিভিউ নেয়ার সুযোগ দেবে আইসিসি। নিয়ম অনুযায়ী, এতদিন ধরে প্রতি ইনিংসে টেস্টে দুই এবং ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে একটি করে রিভিউ নিতে পারত সব দল। করোনাকালীন সময়ে টেস্টে তিন এবং ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে দুটি করে রিভিউ নেয়া যাবে।