যেসব বলিউড তারকা যৌন কেলেঙ্কারীতে জড়িয়েছেন

0
2793

বলিউড ইন্ডাস্ট্রিটা যতটা বড় সেখানে তত বড় বড় কেচ্ছা কেলেঙ্কারি৷ আজ কোনও পরিচালকের সঙ্গে উঠতি নায়িকার গোপন ভিডিও ফাঁস তো কাল কোনও প্রথম সারির নায়িকার সঙ্গে তাঁর প্রেমিকের যৌন ক্রিয়ার এমএমএস আমার আপনার সকলের মোবাইলে৷

এই সব অনভিপ্রেত ঘটনার কোনওটা ইচ্ছাকৃত তো কোনওটা অভিযুক্তের একবারেই অচকিতে ঘটে যায়৷ হঠাৎ সম্পর্কে ছেদ কিংবা ব্ল্যাকমেইলিংয়ের ঘটনাতেও এহেন ভিডিও ক্লিপ ফাঁস করা ব্যবহার করা হয়ে থাকে৷

সে যে কারণেই এই কেলেঙ্কারি হয়ে থাকুক না কেন৷ আজ আমরা বলিউডের ছয় বিখ্যাত ব্যক্তিত্বের ফাঁস হয়ে যাওয়া যৌন কেলেঙ্কারির দিকে নজর ঘোরাব৷

রিয়া সেন ও অস্মিত প্যাটেল:

গোটা কেরিয়ারে যে পরিমাণ খ্যাতি রিয়া সেন পাননি, এই ভিডিওটি ফাঁস হওয়ার পর তার চেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিল৷

প্রায় ৯০ সেকেন্ড সময়সীমার ওই ভিডিওয় অস্মিত ও রিয়াকে যথেষ্ট ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা গিয়েছিল৷ সেই সময় প্রণয়ের সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন এই দুজন৷

দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায় ও পায়েল রোহতাগি:

এটি অবশ্য কোনও ভিডিও ফাঁসের গল্প নয়৷ বলিউডের নামজাদা বাঙালি চলচ্চিত্রকার দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযোগ এনেছিলেন উঠতি অভিনেত্রী পায়েল রোহতাগি৷ ‘সাংহাই’ ছবিতে একটি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পায়েল দিবাকরের কাছে গেলে পরিচালক তাঁকে শয্যাসঙ্গিনী হওয়ার প্রস্তাব দেন৷ তার বিনিময়েই সে ছবিটিতে কাজ করতে পারবে৷

বিপাশা বসু ও অমর সিং:

প্রথমে দিনো মোরিয়া পরে জন আব্রাহাম, বিপাশার প্রেমিক থাকাকালীন কিংবা ভেঙে যাওয়ার পরও এই বঙ্গতনয়াকে ‘ওয়ান ম্যান’ থিওরিতে বিশ্বাসী বলেই সকলে জানতেন৷

তবে কেস পুরো ঘুরে গেল যখন সমাজবাদী পার্টির সাবেক সাংসদ অমর সিংয়ের সঙ্গে বিপাশার অত্যন্ত অশ্লীল কথোপকথনের একটি অডিও টেপ ফাঁস হয়ে গেল৷ সময়টা ২০১১৷ অমর সিং তাঁর প্রভাব খাটিয়েও বিষয়টা খুব একটা ধামাচাপা দিতে পারেননি৷

কঙ্গনা রানাওয়াত ও আদিত্য পাঞ্চালি:

আদিত্য পাঞ্চালি এমন এক বলিউড ব্যক্তিত্ব যিনি প্রায় সবসময়ই কোনও না কোনও কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েই থেকেছেন৷

পূজা বেদির সঙ্গে সম্পর্কে থাকাকালীন প্রমিকার বাড়ির পরিচারিকার সঙ্গে যৌন কেচ্ছায় যুক্ত হয়েছিলেন তিনি৷ পরবর্তীকালে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত অভিযোগ করেছিলেন আদিত্য নাকি তাঁকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করেছেন৷

আমন ভার্মা:

টেলিভিশনের পর্দায় বরাবর ছেলে হিসেবেই পরিচিত ছিলেন আমন ভার্মা৷ তবে প্যান্টবিহীন আমনের ছবি ইন্টারনেটে ফাঁস হয়ে যাওয়ার সে ইমেজে জল পড়ে গেল৷শোনা যায় ওই অবস্থায় ছবি তুলে তিনি এক আপকামিং নায়িকাকে তাঁর সঙ্গে যৌন সংস্রবে লিপ্ত হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷

মধুর ভান্ডারকর ও প্রীতি জৈন:

পরিচালক মধুর ভান্ডারকরের বিরুদ্ধে উঠতি অভিনেত্রী প্রীতি জৈন ধর্ষণের অভিযোগ এনেছিলেন৷ পরে প্রীতি অবশ্য মধুরকে সুযোগ দিয়েছিলেন একটা৷ তাঁর দাবি ছিল

মধুর যদি তাঁকে বিয়ে করেন এবং তাঁর ছবিতে সুযোগ করে দেন তবে পরিচালকের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ তিনি প্রত্যাহার করে নেবেন৷