সাইদুর রহমান আবির:

রাজধানীসহ সারাদেশে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে মাদক নিরাময় কেন্দ্র ও মানসিক হাসপাতাল। চিকিৎসক ছাড়াই নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই পরিচালিত হচ্ছে এসব কেন্দ্রগুলো।

চিকিৎসকরা বলছেন, হাসপাতালের নামে ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে ওঠা কেন্দ্রগুলোতে আসা রোগীরা শারীরিক ও মানসিকভাবে আরো অসুস্থ হয়ে পরছেন।

এসব প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে জোড়ালো মনিটরিং করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদফতরের মহাপরিচালক। দর্শক এনিয়ে দেখুন এবারের মাই সার্চ।

রিপোর্টার: সাইদুর রহমান আবির

যুব সমাজ একটি দেশের মূল চালিকাশক্তি। একটি দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় মূল ভ’মিকা পালন করে তারা।তবে, সমাজের মূল এই চালিকাশক্তি, মাদকের করাল গ্রাসে ক্রমেই ঝুঁকছে অন্ধকার পথে। যুবক কিংবা তরুণদের পাশাপাশি জড়িয়ে পড়ছে নারীরাও।

মাদকের সাথে তাল মিলিয়ে বাড়তে শুরু করেছে মাদক নিরাময় কেন্দ্র ও মানসিক হাসপাতাল। একটু দেখে আসা যাক, বিদেশী মানসিক হাসপাতাল ও মাদক নিরাময় কেন্দ্রের দৃশ্য।

এবার ফিরে আসি রাজধানীতে গড়ে ওঠা মাদক নিরাময় কেন্দ্র ও মানসিক হাসপাতালের দিকে। মূল সড়কের পাশে বানিজ্যিক ভবন, যানযটপূর্ন গাড়ির শব্দ। আর এর মধ্যেই চলছে মাদক নিরাময় ও মানসিক রোগের চিকিৎসা।

ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে ওঠা এসব কেন্দ্রগুলোর ভয়াবহতার কথা জানালেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা। সেবার নামে অনিয়ম করা প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার তাগিদ দিলেন, দায়িত্বে থাকা মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক।