রামুতে রোহিঙ্গা যুবকের হামলায় বাংলাদেশি নিহত, আটক ২

0
72

কক্সবাজারের রামুতে এক রোহিঙ্গা যুবকের হামলায় আব্দুল জব্বার নামের এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বেলা ৩টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে রামু থানার ওসি মো. লিয়াকত আলী জানান।

পুলিশ জানিয়েছে নিহত আব্দুল জব্বারের বাড়ি খুনিয়াপালং ইউনিয়নের খেদারঘোনা এলাকায়। জব্বারের পিতার নাম বশির আহমদ। হত্যার অভিযোগে খুনিয়াপালং ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের খেদারঘোনায় আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা জিয়াবুল হক (২২) ও তার ফুফু ভেওলা খাতুনকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় দেড় মাস আগে তারা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসে।

জানা গেছে, ভেওলা খাতুন বেশ কয়েক বছর আগে কক্সবাজারে এসেছেন। উখিয়ার কোটবাজার এলাকা থেকে বছরখানেক আগে খুনিয়াপালংয়ের খেদারঘোনায় শুক্কুর নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে বন বিভাগের জমির দখল বুঝে নিয়ে তিনি ঘর তোলেন। মাসখানেক আগে সেখানেই আশ্রয় পায় তার ভাইপো জিয়াবুল।

“সামাজিক বনায়নের ওই জমি নিয়ে শুক্কুর ও আব্দুর জব্বারের মধ্যে বিরোধ ছিল। শনিবার সকালে বাগান পাহারা দেওয়ার সময় আব্দুল জব্বারের ওপর হামলা চালায় জিয়াবুল ও ভেওলা খাতুন।”

স্থানীয়রা জব্বারকে উদ্ধার করে প্রথমে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয় বলে জানান ওসি।

তিনি বলেন, নিহতের মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

খুনিয়াপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ বলেন, ওই জমি বনবিভাগের।তা আগে শুক্কুরের দখলে ছিল। শুক্কুর টাকার বিনিময়ে রোহিঙ্গা ভেওলা খাতুনের কাছে দখল ছেড়ে দেন। ভেওলার স্বামী থাকেন মালয়েশিয়ায়।