রাশিয়া বিশ্বকাপে দর্শক মাতাবে মাসকাট ‘জাবিভাকা’

0
75

শাকিল কালাম:

রাশিয়া বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র ৯ দিন। ফুটবল বিশ্বকাপে দর্শক উন্মাদনার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ মাসকাট। রাশিয়া বিশ্বকাপও ব্যতিক্রম নয়।

জাতীয় প্রতীক নেকড়ের আদলে সাজানো হয়েছে ২০১৮ বিশ্বকাপের মাসকাটকে। যার নামকরণ করা হয়েছে ‘জাবিভাকা’। অর্থাৎ ‘গোলদাতা’। ইতোমধ্যেই ফুটবল ভক্তদের মনে জায়গা করে নিয়েছে রাশিয়া বিশ্ব কাটের মাসকাটটি।

খুব একটা সম্মৃদ্ধ নয় বিশ্বকাপ মাসকটের ইতিহাস। দীর্ঘ সাত আসর আর ৩৬ বছর পর প্রথম মাসকট পায় দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ ফুটবল। সিংহের আদলে উইলি নামে প্রথম মাসকাট তৈরি করে ইংল্যান্ড। এরপর থেকে বিশ্বকাপের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয় মাসকাট।

দর্শক জরীপে প্রথম মাসকাটের আবির্ভাব ২০০২ বিশ্বকাপে। ওই বছর তিনটি ভিন্ন মাসকাট উপহার দেয় এশিয়া ফুটবলের অন্যতম দুই শক্তি দুই আয়োজক দেশ দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপান।

রিপোর্টার: শাকিল কালাম

এরপর সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে জার্মানির পিরলে, দক্ষিণ আফ্রিকার জাকোমি আর ব্রাজিলের ফুলেসিওরা রং ছড়িয়েছে বিশ্ব আসরের ওই বছরের আয়োজন মঞ্চে।

২০১৮ বিশ্বকাপের মাসকাট হিসেবে জাতীয় প্রতীক নেকড়ে ‘জাবিভাকা’কে বেছে নিয়েছে আয়োজক দেশ রাশিয়া। জাবিভাকা শব্দের অর্থ গোলদাতা। দর্শকদের মন মাতাতে এমন একটি মাসকাট তৈরি করতে পেরে খুশি নেপথ্যের নায়করা।

দর্শক জরীপে নেকড়ে পেয়েছে ৫৩ শতাংশ ভোট। দুই নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাঘ পেয়েছে ২৭ শতাংশ এবং ২০ শতাংশ ভোট পেয়েছে বিড়াল।