রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখাতে নয়া দিল্লি থেকে আনা হয়েছে বিদেশী কূটনীতিকদের

0
122

বাংলাদেশে দূতাবাস নেই এমন ১৫ দেশের কূটনীতিকদের রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগের কথা শোনাতে দেশে নিয়ে এসেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। শনিবার ঢাকায় বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

এই কূটনীতিকদের মধ্যে বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, বুলগেরিয়া, সাইপ্রাস, ইথিওপিয়া, জর্জিয়া, গ্রিস, মৌরিশাস, পর্তুগাল, স্লোভেনিয়া, ইউক্রেইন ও কেনিয়ার রাষ্ট্রদূত ও হাই কমিশনার রয়েছেন। এছাড়া নাইজেরিয়ার হাই কমিশনারের দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং চেক রিপাবলিক, অস্ট্রিয়া ও ঘানার শার্জ ডি অ্যাফেয়ার্স রয়েছেন কূটনীতিকদের এই দলে।

মিয়ানমারের সহিংসতার মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে ১৩ সেপ্টেম্বর কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে যান ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা।  এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, “প্রতিবছর বিজয় দিবস ও স্বাধীনতা দিবসে আমরা অনাবাসিক কূটনীতিকদের আমন্ত্রণ করি। তবে এবার তাদের আমরা কক্সবাজার পরিদর্শনেরও আমন্ত্রণ জানিয়েছি।”

মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগের কৌশলের অংশ হিসেবে এটা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

গত ২৫ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর দমন অভিযান শুরুর পর বাংলাদেশ অভিমুখে রোহিঙ্গাদের ঢল নামার এক পর্যায়ে ঢাকায় বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক মিশন প্রধানদের কক্সবাজারে শরণার্থী শিবির ঘুরিয়ে দেখায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এবার নিধনযঞ্জের মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা মিলিয়ে এই জনগোষ্ঠীর প্রায় ১০ লাখ মানুষকে এখন আশ্রয় দিচ্ছে বাংলাদেশ।

 

সফর সূচি অনুযায়ী রোববার কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করবেন অনাবাসিক কূটনীতিরা। সেখান থেকে ফিরে সন্ধ্যায় তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

সোমবার নয়া দিল্লিতে ফিরে যাওয়ার কথা এই কূটনীতিকদের।