শিক্ষাজীবন শেষ হলেও, শেষ হয় না দুশ্চিন্তা

0
82

মাহবুব সৈকত : গত এক দশকে যে কয়টি ক্ষেত্রে এগিয়েছে দেশ শিক্ষা তার মধ্যে অন্যতম। মেধা এবং যোগ্যতা দিয়ে নিজেদের যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে গড়ে তোলার সংকল্প রয়েছে শিক্ষার্থীদের। তবে স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নের সুযোগ পেয়েও হতাশ শিকার্থীদের অনেকেই।

আবার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শেষে কাংখিত পেশা না পেয়ে দিশেহারাদের সংখ্যাও কম নয়। বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় শিক্ষার্থীদের নিয়ে দরকার সমন্বিত পদক্ষেপের।

নতুন প্রজন্ম, সম্ভাবনার বাতিঘর। আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় এ বয়সেই সব শখ বিসর্জন দিয়েছে এই শিক্ষার্থীরাও। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিনায় বসে নিজেদেরকে যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন বুনছে মাধ্যমিক পার হওয়া সহপাঠিরা।

স্বপ্ন যখন হাতের মুঠোয়, অর্থাৎ দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ গুলোতে অধ্যয়নের সুযোগ। কিন্তুু এ কি বলছেন মেধাবীরা। জীবনের প্রায় অর্থেক সময় ব্যায় করে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সমাপ্তি হলেও শেষ হয় না দুশ্চিন্তা।

বিশ্লেষকরা বলছেন আগামী পৃথিবীরর নেতৃত্বদেয়ার মত প্রজন্ম গড়তে হলে দরকার আরো বেশি সমন্বিত পদক্ষেপ। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জনসম্পদ গড়ে তোলার প্রত্যাশা সবার।