শীঘ্রই ভাঙা হবে তাজমহল, তৈরি হবে তেজ মন্দির

0
1430

তাজমহলকে গোটা পৃথিবী চেনে প্রেমের প্রতীক হিসেবে। স্ত্রী মমতাজের স্মৃতিতে এমনই সমাধি বানিয়েছিলেন মোগল সম্রাট শাহজাহান যে তা বিশ্বের অন্যতম আশ্চর্য সৌধের স্বীকৃতি পায়। তবে সেই সৌধ আসলে শিব মন্দির বলে বিভিন্ন সময়ে দাবি ওঠে।

ইতিহাসের আগ্রায় নতুন ইতিহাস তৈরি হবে। রাম নামের মধ্য দিয়ে সূচনা হবে তাজমহলকে কেন্দ্র করে তাজ মহোৎসব। তা নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। এরই মধ্যে তাজমহল ভেঙে মন্দির বানানোর হুমকি।

বিনয় কাটিহার। বাজরং দলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এখন অবশ্য তিনি উত্তরপ্রদেশ থেকে বিজেপির রাজ্যসভা সাংসদ। হিন্দুবাদীদের রামজন্মভূমি আন্দোলন থেকে অযোধ্যায় বিতর্কিত সৌধ ভাঙা সব সময়েই সক্রিয় ভূমিকা ছিল বিনয় কাটিহারের।

তাজ ভেঙ্গে নির্মাণ করা হবে তেজ মন্দির

এদিন কাটিহার বলেন, তাজ মহোৎসব অথবা তেজ মহোৎসব একই বিষয়। তাজ আর তেজ এর মধ্যে বিশেষ ফারাক নেই। আমাদের তেজ মন্দিরকেই আওরঙ্গজেব সমাধি বানায়। খুব তাড়াতাড়ি তাজমহলকে তেজ মন্দির বানানো হবে।’

আগামী ১৮ থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি হবে তাজ মহোৎসব। উদ্বোধনে থাকবেন রাজ্যের সন্ন্যাসী মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও রাজ্যপাল রাম নায়েক। উদ্বোধনে উপস্থাপিত হবে রামলীলা। এ নিয়ে রীতিমতো সরগরম জাতীয় রাজনীতি। তারই মধ্যে বিনয় কাটিয়ারের বিস্ফোরক দাবি।

অতীতে বিনয় কাটিয়ারকে হিন্দুত্ব আন্দোলনে বড় ভূমিকা নিতে দেখা গিয়েছে। তাই তাজমহলকে মন্দির বানানোর হুঙ্কারকে ছোট করে দেখা ঠিক নয়। বাস্তবে কতটা কী করতে পারবেন কাটিয়াররা তা ঠিক না থাকলেও যোগী আমলে নতুন করে তাজমহল ইস্যু জেগে উঠতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

উল্লেখ্য, হিন্দুত্ববাদীদের একটা অংশ দীর্ঘদিন ধরেই তাজমহল অতীতে শিবমন্দির ছিল বলে দাবি জানিয়ে আসছে। তাদের বক্তব্য আদালত নাকচ করে দিলেও মুখ যে বন্ধ করা যায়নি তা নতুন করে সামনে এনে দিলেন কাটিয়ার।

হিন্দু ঐতিহাসিক হিসেবে খ্যাত লেখক পি এন ওক ‘তাজমহল : দ্য ট্রু স্টোরি’ নামের বিতর্কিত বইয়ে দাবি করেন ওই সৌধ আদৌ শাহজাহান স্ত্রীর স্মৃতিতে তৈরি করেননি। ওটি রাজপুত রাজা মান সিংহ উপহার হিসেবে দিয়েছিলেন। এ নিয়ে কোনও প্রমাণ না মিললেও অনেক বিতর্ক হয়েছে। অনেক মামলাও হয়েছে আদালতে।