শেষ হচ্ছে ল্যাকমে ফ্যাশন উইক

0
112

গত ৩১ জানুয়ারি শুরু হওয়া পাঁচ দিনের ল্যাকমে ফ্যাশন উইক সামার রিসোর্ট ২০১৮ শেষ হবে আজ। শেষ ফ্যাশন শোটি হবে ডিজাইনার আনামিকা খান্নার পোশাক নিয়ে।

কাল চতুর্থ দিনে ফোরজা শিরোনামে গ্রীষ্মের সংগ্রহ তুলে ধরলেন ডিজাইনার শাকশা ভাট ও কিন্নি কামাত। গাঢ় মভ, লাল, বেগুনি, সাদা রঙের সঙ্গে কালো, মেরুন আর সরষেরঙা পোশাকগুলোতে ডিজাইনারদের অতীত ও বর্তমান সময়ের নকশা দেখানো হয়।

একটি শোতে সমুদ্র ভ্রমণের পোশাক সংগ্রহ দেখান ভেরান্দাহ। ডিজাইনার অঞ্জলি প্যাটেল মেহতা ‘টি ৯১’ শিরোনামে ফ্লোয়ি পোশাক, ঝালর দেওয়া জ্যাকেট ও কাফতান দেখান।

ডিজাইনার ইশা দিঙ্গরা কালো ও সাদায় ফুটিয়ে তোলেন অভিজাত ফুলের কাটওয়ার্ক। চীনা ত্বত্ত ইন ও ইয়াং দ্বারা প্রভাবিত হয়ে পোশাকগুলো বানানো হয়েছে বলে জানান ইশা। পারস্য থেকে রাজস্থানি সংস্কৃতির প্রভাব তাঁর কাজে। উঁচু-নিচু কাট, হেমলাইন ও হাতায় ঝালরের পর ঝালর, স্কার্ট, ফ্রিল লাগানো পোশাকগুলো পরতে পরতে (লেয়ারিং) কিংবা আলাদা-দুভাবে পরলেই ভালো লাগবে বলে জানান তিনি।

পোশাকে আভিজাত্যের সীমা ছাড়িয়ে যায় চার ডিজাইনারের কাজ। র‍্যাম্পকে বাগান বানিয়ে সেখানে নিজেদের পোশাক দেখান আনুশ্রী রেড্ডি, সোনাম ও পরশ মোদি এবং শ্রিয়া সোম। পেস্টাল রঙের লেহেঙ্গা ও ছেলেদের পায়জামা-পাঞ্জাবির সংগ্রহ দেখান আনুশ্রী রেড্ডি। ছেলে ও মেয়েদের পোশাকেই দেখা যায় ফুলেল নকশা। আর শো স্টপার ছিলেন সানিয়া মির্জা।

বিকেলে নিকশা লুলা মেহরার পোশাকের সঙ্গে ব্র্যান্ড ক্যাপ্রিসির ব্যাগ কাঁধে ঝুলিয়ে র‍্যাম্পে হেঁটে বেড়ান মডেলরা। শো স্টপার অভিনেত্রী সায়ামি খের।

এরপরই শুরু হয় আরও জমকালো আয়োজন। ডিজাইনার সংযুক্তা দত্ত, অশ্বিনী রেড্ডি, শ্লোকা সুধাকার ও রেশমা কুনহির কাজের ঝলক দেখা যায়। ডিজাইনাররা শো স্টপার হিসেবে যথাক্রমে বেছে নিয়েছিলেন বলিউড তারকা দিয়া মির্জা, তামান্না ভাটিয়া ও বিপাশা বসুকে। ‘লোটাস’ শিরোনামে রেশমা কুনহির পোশাক সংগ্রহের প্রদর্শন শেষ হয় বিপাশা বসুর হাঁটার মধ্য দিয়ে।

বিকেল পাঁচটায় মূলমঞ্চে পোশাক সংগ্রহ দেখান ডিজাইনার পায়েল সিনঘাল। তুরস্ক, মরক্কো, ভারতের মোগল সময়, ইরান প্রভৃতি দেশের ইসলামি শিল্পের মোটিফ ব্যবহার করা হয় তাঁর পোশাক সংগ্রহে। শো স্টপার ছিলেন অদিতি রাও হায়দারি।

মিরা ও মুজাফফর আলীর ব্র্যান্ড কোটওয়ারা পরে মঞ্চে স্নিগ্ধতা ছড়ান সুস্মিতা সেন। শিরোনাম ছিল সামানজার-আ গার্ডেন অব ফ্লাওয়ার। চিকেনকারির ওপর আদিকালের গোলাপি ও সোনালি রঙের জারদৌসি, আড়ি, মুকেশের কাজ এনেছে ভিন্ন মাত্রা। এই ডিজাইনার দম্পতির মেয়ে শামা আলীর কাজও দেখা যায় র‍্যাম্পে।

গতকালের পোশাকগুলোতে মসলিন, সিল্ক, নেট, অরগাঞ্জা, সুতি, খাদি, লাইক্রা ও ক্রেপ কাপড় এসেছে ঘুরেফিরে। হাতার শেষ মাথা ও মাঝখান থেকে ঘন করে লম্বা সুতা ছড়িয়ে দিয়েছিলেন অনেকেই। কাপড়ের তৈরি জরির নকশার চওড়া কোমরবন্ধনীও ছিল। হটপ্যান্ট, টাইটসের সঙ্গে ক্রপড টপ পরার চল দেখা যাবে গরমে এমন আভাসও পাওয়া গেল আয়োজনে। চতুর্থ দিনের ফ্যাশন শো শেষ হয় শান্তনু ও নিখিলের সংগ্রহ দিয়ে।