সঞ্জয় দত্তের শৈশব ফিরিয়ে দিলেন পরিচালক

0
65

বলিউড তারকা সঞ্জয় দত্তের বায়োপিক ‘সঞ্জু’র শুটিং শুরুর পর থেকেই আলোচিত। আর ট্রেলার প্রকাশ পাওয়ার পর তো রীতিমতো হইচই শুরু হয়েছে। ছবিতে সঞ্জয়ের চরিত্রে রণবীর কাপুরের ‘লুক’ আর অভিনয় মুগ্ধ করেছে সবাইকে। পরিচালক রাজকুমার হিরানি সঞ্জয়ের এই জীবনীভিত্তিক ছবিকে জীবন্ত করে তুলতে কোনো ছাড় দিচ্ছেন না।

‘সঞ্জু’ ছবিতে সঞ্জয়ের জীবনের কয়েকটি অধ্যায় দেখাবেন হিরানি। এর জন্য তাঁকে বন্ধু সঞ্জয়ের জীবন নিয়ে অনেক গবেষণা করতে হয়েছে। এই অভিনেতার শৈশব যে বাড়িতে কেটেছে, অবিকল তেমন একটি বাড়ি তিনি নির্মাণ করেছেন এই ছবির জন্য। মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় বাবা সুনীল দত্ত আর মা নার্গিসের সঙ্গে সঞ্জয় যে বাড়িতে থাকতেন, সেটি এখন আর নেই। কিন্তু তাই বলে হিরানি অন্য কোনো বাড়িতে ছবির সেসব দৃশ্য শুট করতে চাননি। সঞ্জয়দের সেই বাড়িটির মতো অবিকল একটি বাড়ি তৈরি করেছেন। আর এই কাজে হিরানিকে সহযোগিতা করেন সঞ্জয়ের বোন প্রিয়া দত্ত। তিনি হিরানিকে তাঁদের সেই বাড়ির ছবি আর ভিডিও দিয়ে সাহায্য করেছেন। হিরানি জানান, বাড়িটি তৈরি করতে সময় লেগেছে ২৫ দিন।

এদিকে আজ শনিবার সঞ্জয় দত্তের বাবা সুনীল দত্তের জন্মদিন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বাবার সঙ্গে একটি ছবি প্রকাশ করেছেন সঞ্জয় দত্ত। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘বাবা, তুমি যদি আমাকে মুক্ত অবস্থায় দেখে যেতে পারতে।’

একটি একে-৫৬ রাইফেল অবৈধভাবে রাখার দায়ে সন্ত্রাসবিরোধী টাডা আইনে গ্রেপ্তার হন সঞ্জয়। ২০০৬ সালে এ মামলায় তাঁর ছয় বছর কারাদণ্ড হয়। একসময়ের তুমুল জনপ্রিয় এ তারকা বলেন, অন্য লোকজন তাঁকে অস্ত্রটি রাখতে দিয়েছিল। পরে দেখা যায় তারাই ১৯৯৩ সালের মুম্বাই বিস্ফোরণের সঙ্গে জড়িত। সুপ্রিম কোর্ট ২০১৩ সালে সঞ্জয়ের সাজার মেয়াদ এক বছর কমিয়ে পাঁচ বছর করেন।

৪২ মাস কারাভোগের পর ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত মুক্তি পান। ভালো আচরণের কারণে অস্ত্র মামলায় সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ার আট মাস আগেই পুনের ইয়েরওয়াড়া কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। মুক্তি পাওয়ার পর মুম্বাইয়ে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেন সঞ্জয় দত্ত। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমি সন্ত্রাসী না। অস্ত্র আইনে আমার কারাদণ্ড হয়েছিল। আমার অনুরোধ, আমাকে ১৯৯৩ সালের মুম্বাইয়ের হামলায় অভিযুক্ত হিসেবে বলবেন না।’

সঞ্জয় বলেন, ‘আমি এখন ভীষণ খুশি। কেননা আমার ২৩ বছরের অপেক্ষার সমাপ্তি হলো। আজ আমার মুক্তি হলো।’

বলিউডের দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র খলনায়ক ও ‘মুন্না ভাই এমবিবিএস’খ্যাত এই অভিনেতা আবেগতাড়িত হয়ে বলেন, ‘আজ বাবা বেঁচে থাকলে সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন। ছেলেকে মুক্ত দেখাই ছিল তাঁর একমাত্র লড়াই।’

সঞ্জয় দত্ত বলেন, ‘আমি আমার দেশ ও দেশের পতাকাকে ভালোবাসি। কারাগার থেকে বের হওয়ার পর মাটিতে চুমু খেয়েছি। সালাম করেছি পতাকায়।’

‘সঞ্জু’ ছবিটি আগামী ২৯ জুন মুক্তি পাবে। এখানে সুনীল দত্তের চরিত্রটি করছেন পরেশ রাওয়াল। সঞ্জয়ের মা অভিনেত্রী নার্গিসের চরিত্রে দেখা যাবে মনীষা কৈরালাকে। দিয়া মির্জা হবেন সঞ্জয়ের বর্তমান স্ত্রী মান্যতা দত্ত। সঞ্জয়ের সাবেক দুই প্রেমিকা টিনা মুনিম ও মাধুরী দীক্ষিতের চরিত্রে অভিনয় করবেন সোনম কাপুর ও কারিশমা তান্না। সালমান খান হবেন জিম সর্ব। ছবিতে আরও দেখা যাবে অভিনেত্রী টাবু ও আনুশকা শর্মাকে।

আরও সংবাদ