সাইবার অপরাধে শিকার হওয়া নারীদের সেবা দিতে সাইবার স্পেস ইউনিট উদ্বোধন

0
303

ভার্চুয়াল জগতে ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিকসহ নানাভাবে সাইবার অপরাধের শিকার নারীদের সহায়তার জন্য ‘সাইবার সাপোর্ট ফর উইমেন’ সেবা চালু করেছে পুলিশ।

সোমবার রাজারবাগ পুলিশ লাইনস অডিটোরিয়ামে এই সেবার উদ্বোধন করেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, সাইবার অপরাধে নারীরাই বেশি হয়রানির শিকার হচ্ছেন। ৬৮ শতাংশ নারী নানাভাবে সাইবার অপরাধের শিকার হচ্ছেন। নারী পুলিশ সদস্যরাই এটি ফর উইমেন ইউনিট’ চালাবেন।

পুলিশ জানায়, সাইবার জগতে সংঘটিত নারীর প্রতি হয়রানিমূলক অপরাধের অভিযোগ গ্রহণ ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও আইনি সহায়তা দেয়ার লক্ষ্যে পুলিশ সাইবার সাপোর্ট ফর উইমেন (Police cyber support for women) নামে ফেসবুক পেজ, ইমেইল আইডি ও হটলাইন নম্বর চালু করেছে পুলিশ সদর দফতর।

পুলিশ প্রধান বলেন, সাইবার অপরাধ সারাবিশ্বে সংক্রমণের মতো ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও এর ব্যতিক্রম নয়। এদেশে সাইবার অপরাধীরা বিভিন্ন ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার করে এসব অপরাধ করছে। যেখানে তারা নারীদের  সামাজিকভাবে হেয় করার জন্য নানা ধরনের ছবি কিংবা নানা ধরনের মন্তব্য পোস্ট দিয়ে থাকে।

এভাবে বিভিন্ন সময় অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দেখা যায়, বাংলাদেশের শতকরা ৬৮ ভাগ নারী  সাইবার অপরাধ বা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এজন্য পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। আর যেসব নারী হয়রানির শিকার হচ্ছেন তাদের বেশির ভাগের বয়স ২০ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।

এই সেবা পেতে প্রয়োজনে জাতীয় সেবা নম্বরে (৯৯৯) যোগাযোগ করা যাবে। প্রাথমিক তথ্য পাওয়ার পর সেখানে পুলিশ পাঠানো কিংবা সহায়তা চাওয়া নারীকে সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে আসা হবে বলেও জানান আইজিপি।

বেনজির আহমেদ আরও বলেন, ‘সাইবার জগতে অপরাধ দিন দিন বেড়েই চলছে। এখন পর্যন্ত সাইবার অ্যাক্টে ৬ হাজার ৯৯ টি মামলা হয়েছে। এই অপরাধগুলো নিয়ে ডিএমপি, ডিবি, সিআইডি, পিবিআই কাজ করছে। সাইবার জগতের ঝুঁকি বিষয়ে সচেতন হয়েই এটি ব্যবহার করা উচিত। তারপরও কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যা তৈরি হলে সে বিষয়ে আমরা কাজ করব। এক্ষেত্রে ভিকটিমের সর্বোচ্চ গোপনীয়তা রক্ষা করেই তাকে সেবা দেব আমরা।’