সাময়িকভাবে সব ধরনের অভিবাসন স্থগিত রাখার উদ্যোগ নিচ্ছেন ট্রাম্প

0
370

করোনাভাইরাস মহামারি ও দেশে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে আমেরিকায় সব ধরনের অভিবাসন স্থগিত রাখার উদ্যোগ নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

২০ এপ্রিল সন্ধ্যায় এক টুইট বার্তায় ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, অদৃশ্য শত্রুর আক্রমণ মোকাবিলা ও আমেরিকার মহান জনগণের কর্ম সংরক্ষণের জন্য আমি একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করতে যাচ্ছি, এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী আগমন সাময়িক বন্ধ থাকবে।’

তবে এই টুইট বার্তায় বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। কত দিনের জন্য অভিবাসন বন্ধ হবে, গ্রিন কার্ড যাঁদের আছে বা সীমান্তে এ নির্বাহী আদেশ কীভাবে ব্যবহৃত হবে, তা তিনি স্পষ্ট করেননি। এ বিষয়ে হোয়াইট হাউজও বাড়তি কোন ব্যাখ্যা দেয়নি। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে ২ কোটি ২০ লাখ নাগরিক চাকরি হারিয়ে বেকার ভাতার জন্য আবেদন করেছে। এ অবস্থায় ট্রাম্প নাগরিকদের চাকরি রক্ষার জন্য অভিবাসীদের নিষিদ্ধের পরিকল্পনা করছিলেন। 

গত কয়েক সপ্তাহ যাবত যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট প্রায় সব ধরণের ভিসা প্রসেসিং স্থগিত রেখেছে। শুধু জরুরি ভিসা ছাড়া। ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ডেমোক্রেট দলের সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী অ্যামি ক্লোবুচার বলেন, ‘আমাদের দেশ যখন ভয়াবহ মহামারির সঙ্গে লড়ছে, সাধারণ মানুষ তাদের জীবন বাজি রাখছে তখন ট্রাম্প অভিবাসীদের ওপর হামলা করছে এবং নিজের ভুল অভিবাসীদের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে।’ 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউনে থাকা পুরো আমেরিকার একটি বিরাট অংশ দ্রুত খুলে দেওয়ার চেষ্টা করছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময়ে তাঁর নির্বাচনী এজেন্ডা আমেরিকায় অভিবাসন নিয়ন্ত্রণের কাজ করার সুযোগও তিনি গ্রহণ করছেন। আগে থেকেই ডোনাল্ড ট্রাম্প চীন ও ইউরোপ থেকে আমেরিকা ভ্রমণ নিয়ন্ত্রণ করার কথা বলে আসছিলেন।

জানা গেছে, অভিবাসন বন্ধ রাখার টুইট দেওয়ার কিছু আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প অ্যাসিসট্যান্ট হেলথ অ্যান্ড হিউম্যান সার্ভিস সেক্রেটারি অ্যাডমিরাল ব্রেট গিরোয়েরকে বলেছেন, আমেরিকার সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের অগ্রগতি যেন তাঁকে অবহিত করা হয়।