সৌদিতে জিয়া পরিবারের বিনিয়োগের তথ্য ভিত্তিহীন: মির্জা ফখরুল

0
63

সৌদি আরবে জিয়া পরিবারের ১২’শ কোটি ডলারের যে বিনিয়োগের খবর এসেছে এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন  বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার দুপুরে জাতীয় রাজধানীর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ২০দলীয় জোটের শরিক দল কল্যাণ পার্টির ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভাটির আয়োজ কওে দলটি।

এ সময় বলেন, আমরা দলের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে খবর নিতে বিভিন্ন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলাপ করেছি। কেউ কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি। কারণ খবরটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

সরকারের উদ্দেশ্যে ফখরুল বলেন, প্রত্যাশা করি আপনাদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে, কথায় কথায় দেশের মানুষকে আন্ডার এস্টিমেট করবেন না। দেশের মানুষ সব কিছু মেনে নেবে, তা ভাববেন না। এরাই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় স্বৈরাচারকে বিদায় করেছে এবং অধিকার প্রতিষ্ঠায় হানাদারদের বিদায় করতে লড়াই করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, মিথ্যাচার ও অপপ্রচারের মাধ্যমে জনগণকে বিভ্রান্ত করে কি অর্জন করতে চান? বিএনপিকে নির্বাচন ও রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে চান? একটি কথা খুব স্পষ্ট, দেশের মানুষ আর কখনও ২০১৪ সালের মতো নির্বাচন হতে দেবে না। আমরা নির্বাচন চাই। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। নির্বাচন অবশ্যই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই হবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, যে সংসদে ১৫৪ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয় সে সংসদ দেশের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করে না। যে আইন তৈরি করা হয়, সংবিধান যেভাবে পরিবর্তন করা হয় সেটা জনগণের জন্য আইন কিংবা সংবিধান নয়। এটাই বাস্তবতা।

বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করে বলেন, ক্ষমতায় যেতে যারা বাধা দেবে ও দিচ্ছে তাদেরকে গুম করছে আওয়ামী লীগ সরকার। শুধু তাই নয়, এরা অত্যান্ত সুপরিকল্পিতভাবে মানুষকে বোকা বানিয়ে অধিকার কেড়ে নিয়ে ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে চায়।

মূলত আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন তাদের আসল চেহারায় ফিরে আসে। সেই চেহারা হচ্ছে ধ্বংসাত্মক ও ফ্যাসিস্ট। মনে রাখতে হবে ফ্যাসিস্টদের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের যে লড়াই তা অসম। তবে আমরা এখন নির্বাচনকে সামনে রেখে আন্দোলন করে যাচ্ছি। সকল দলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন নিশ্চিত করারও আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।