হোয়াটস অ্যাপের সিইও হতে পারেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত নীরজ অরোরা

0
75

হোয়াটস অ্যাপ বর্তমানে সিইও শূণ্য হয়ে র‌য়েছে। এ সপ্তাহের শুরুতেই গোড়াতেই হোয়াট অ্যাপের যুগ্ম–প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও জ্যান কোওম সংস্থা ছেড়ে তাঁর নিজস্ব সংস্থা শুরু করেন। তাই আপাতত জ্যান কোওমের জায়গাটি খালি রয়েছে।

তবে জানা যায়, হোয়াটস অ্যাপের দীর্ঘদিনের কর্মী নীরজ অরোরা দায়িত্ব নিতে চলেছেন সিইওর। সেরকমই সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি এই মুহূর্তে হোয়াটস অ্যাপের বিজনেস অফিসারের পদে রয়েছেন।

হোয়াটস অ্যাপের এই বৃদ্ধি লাভের পেছনে নীরজের ভূমিকা অনস্বীকার্য। ৩৯ বছরের নীরজ দিল্লির আইআইটির ছাত্র বলে জানা যায়। জ্যান কোওম আগেই ফেসবুকে এক পোস্টের মাধ্যমে ঘোষণা করে দিয়েছিল যে তিনি হোয়াটস অ্যাপ থেকে বিদায় নিতে চলেছেন।

যদিও এই সিদ্ধান্তের পেছনের কারণ কী তা তিনি স্পষ্ট করে কিছু জানাননি। তবে মনে করা হচ্ছে, হোয়াটস অ্যাপের গোপনীয়তা বজায় রাখাসহ বিভিন্ন ব্যক্তিগত সুরক্ষা নিয়ে ফেসবুকের সঙ্গে কোওমের ঝামেলা শুরু হয়। তার জন্যই তিনি সিইওর পদ থেকে সরে যান।

গত বছরের নভেম্বরেই কোওমের সঙ্গে হোয়াটস অ্যাপ ছাড়েন ব্রায়ান অ্যাক্টনও। এই দু’‌টি পদই এখন মার্ক জুকারবার্গকে পূরণ করতে হবে। হোয়াটস অ্যাপের সঙ্গে নীরজ অরোরার সাত বছরের সম্পর্ক।

২০১৪ সালে ফেসবুক নিজেদের অধীনে হোয়াটস অ্যাপকে নেওয়ার অনেক আগে থেকেই নীরজ যুক্ত এই অ্যাপের সঙ্গে। হোয়াটস অ্যাপের বেশ কিছু বড় পরিবর্তন নীরজ তাঁর নিজের হাতেই করেছেন। মার্ক জুকারবার্গ অত্যন্ত প্রসন্ন নীরজের কাজে। নীরজ এর আগে পেটিএমে কাজ করতেন।

দিল্লির বাসিন্দা নীরজ ২০০০ সালে আইআইটি–দিল্লি থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে ডিগ্রি লাভ করেন। ২০০৬ সালে তিনি এমবিএ পাশ করেন।

নীরজ অরোরা যদি হোয়াটস অ্যাপের সিইও হন, তাহলে গুগলের সুন্দর পিচাই এবং মাইক্রোসফটের সত্য নাদেল্লার পর তিনি তৃতীয় ভারতীয় বংশোদ্ভুত যিনি একটি বড় মাপের ইন্টারনেট সংস্থার দায়িত্ব নিতে চলেছেন।