১০ বছরে প্রায় ৪ লাখ মানুষ পেয়েছে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা (ভিডিও)

0
168

রাকিব হাসান : অসহায়, দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত বিচারপ্রার্থী জনগণের ন্যায়বিচার পাওয়ার পথ সুগম করার লক্ষ্যে আইনগত সহায়তা প্রদান আইন ২০০০ প্রণয়ন করেছে সরকার। এরই মধ্যে প্রত্যেক জেলায় স্থাপন করা হয়েছে স্থায়ী লিগ্যাল এইড অফিস।

বিগত ১০ বছরে ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৭৯০ জনকে সরকারি খরচে প্রদান করা হয়েছে আইনগত সহায়তা। আপোষ-মীমাংসার মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষকে সর্বমোট ১৮ কোটি ৪৩ লক্ষ ২৪ হাজার ৩২৬ টাকা আদায় করে দেয়া হয়েছে।

দেশের দরিদ্র, অস্বচ্ছল, আর্থ সামাজিক কারণে বিচার প্রাপ্তিতে অসমর্থ ও সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে আইনি সেবা দিতে ২০০০ সালে প্রথমবারের মত সরকারী খরচে আইনগত সহায়তা কার্যক্রম শুরু হয়।

সংবিধানের তৃতীয় ভাগের ২৭ অনুচ্ছেদে সকলের আইনী সমান অধিকার ও সুযোগ নিশ্চিত করতে ফৌজদারি ও দেওয়ানি উভয় ক্ষেত্রেই আইনী সুবিধার বিধান রাখা হয়েছে।

গত ১০ বছরে এই কার্যক্রমের আওতায় প্রায় ৪ লাখ মানুষ আইনি সহায়তা পেয়েছেন। যেখানে বছরে গড়ে সারা দেশে প্রায় ৪০ হাজার অসহায় মানুষ এই সেবা নিচ্ছেন। এই সময়ে মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে এক লাখেরও বেশি।

লিগ্যাল এইড অফিস মাত্র চার বছরে প্রি-কেইস ও পোস্ট কেইস মিলিয়ে ১৭ হাজার ৯২৯টি আপোষ মধ্যস্থতার উদ্যোগ গ্রহন করেছে। এর ফলে ১৬ হাজারেরও বেশী বিচারপ্রার্থী শান্তিপূর্ণভাবে আপোষ-মীমাংসার সুফল ভোগ করছেন।

সরকারের এধরনের উদ্যোগের ফলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি সকল শ্রেণীর মানুষ ন্যায় বিচার পাচ্ছেন বলে মনে করেন আইনজীবিরা।

বিচার বিভাগের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার বিচার বিভাগের সর্বত্র পৌছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।