১১ ডিসেম্বর শত্রুমুক্ত হয় কুষ্টিয়া ও জামালপুর

0
71

আজ ১১ ডিসেম্বর কুষ্টিয়া শহর, পোড়াদহ, মিরপুর, ভেড়ামারা এলাকা স্বাধীন শত্রুমুক্ত হয়। ১৯৭১ এর এপ্রিল থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সর্বমোট ২২ টি ছোটবড় যুদ্ধ শেষে কুষ্টিয়া ১১ ডিসেম্বর শত্রু মুক্ত হয়েছিল।

কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের কমান্ডার রফিকুল আলম টুকু ১১ ডিসেম্বরকে সরকারীভাবে স্বীকৃতি দেয়ার দাবী জানান। আর জেলা প্রশাসক জহির রায়হান বলেন, আগামীতে কুষ্টিয়া মুক্ত দিবসে সরকারী ভাবে পালনের চেষ্টা করা হবে।

এছাড়া ১১ ডিসেম্বর হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে অকুতোভয় মুক্তিসেনারা জামালপুরকে শত্রুমুক্ত করে। জামালপুর ছিল পাক হানাদার বাহিনীর ৩১ বালুচ রেজিমেন্টের হেডকোয়ার্টার।

১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর জামালপুরকে মুক্ত করার লক্ষ্যে মুক্তি বাহিনী চর্তুদিক থেকে জামালপুরকে ঘিরে ফেললে হানাদার বাহিনীও আত্মরক্ষায় সর্বশক্তি নিয়োগ করে। এক পর্যায়ে মুক্তি ও মিত্র বাহিনীর চতুর্মুখী আক্রমনে হানাদার বাহিনী পরাস্ত হলে ১১ ডিসেম্বর ভোরে কোম্পানী কমান্ডার ফয়েজুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিসেনারা হানাদার বাহিনীর হেড কোয়ার্টার পুরানা ওয়াপদা ভবনে স্বাধীন বাংলার বিজয় পতাকা উত্তোলন করেন।