পাকিস্তানি প্রেতাত্মরা দেশের ইতিহাস বিকৃত করতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী

0
90

বাংলাদেশে আর যেন পাকিস্তানি প্রেতাত্মারা দেশের ইতিহাস বিকৃত না করতে পারে, সেলক্ষ্যে সকলকে জাগ্রত থাকার আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষন পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণের মধ্যে অনন্য, আর স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি এই ভাষণকে মুছে ফেলার চেষ্টা করেছিল বলে জানান তিনি। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নাগরিক সমাবেশে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ আজ স্বাধীন। ২৩ বছরের সংগ্রাম আর ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে আমরা এই স্বাধীনতা পেয়েছি। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা একদিন গড়ে উঠবে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশ বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত নাগরিক সমাজের সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

পাকিস্তানীরা সব সময়ে আমাদের দাবিয়ে রাখতো। ৫৬ ভাগ জনসংখ্যা এখানে থাকলেও তাদের কোনো অধিকার ছিলো না। তারা মায়ের অধিকার কেড়ে নিতে চেয়েছিলো। সে সময় বঙ্গবন্ধুই ছাত্র সমাজকে একত্রিত করে আন্দোলন গড়ে তুলেছিলেন বলেও জানান শেখ হাসিনা।

এসময় ৭ মার্চের স্মৃতিচারণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন নেতার যেসব ভাষণ বিশ্বে স্বিকৃতি পেয়েছে সেগুলো ছিলো লিখিত তবে বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণ ছিলো সম্পূর্ণ অলিখিত। তিনি সেই ভাষণেই মানুষকে মুক্তিযুদ্ধের দিক নির্দেশনা দিয়েছিলেন। জাতির পিতার নির্দেশেই বাঙালীরা অস্ত্র তুলে নিয়েছিলেন।

এই ভাষণটি একসময় নিষিদ্ধ ছিলো উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিহাস কখনো মুছে ফেলা যায় না। যারা এ কাজটি করেছিলো তাদেরকে পাকিস্তানে প্রেতাত্মা বলে অভিহিত করেন তিনি। যতই মোছার চেষ্টা করা হোক, ইতিহাসও প্রতিশোধ নেয়, শিক্ষা দেয় বলে জানান তিনি।

৭ মার্চের ভাষণ স্বীকৃতি পেয়েছে। পৃথিবীর কোন ভাষণ এতদিন, এত ঘণ্টা প্রচারিত হয়নি। যতই বাধা এসেছে ততই মানুষ জাগ্রত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় দেশের নাগরিক সমাজ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ সমাবেশের আয়োজন করে। এতে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে সভাপতিত্ব করেন এমিরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান।

এ বছরের ৩১ অক্টোবর (মঙ্গলবার) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানায়, একাত্তরের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ভাষণ ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অফ দা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্ট্রারে’ যুক্ত হয়েছে।