২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা : মন্ত্রিসভায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব

347

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় মন্ত্রিসভায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে।

আজ সোমবার বেলা ১১টায় রাজধানীর তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠক শেষে দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের সম্মেলনকক্ষে এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এম এন জিয়াউল আলম এ তথ্য জানান।

সচিব বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় অনেক নিহত ও আহত হয়েছেন। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে নিহতদের মাগফিরাত কামনা করা হয়। এ ছাড়া নৃশংস এ ঘটনায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়।

জিয়াউল আলম জানান, সোমবারের মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘দি ইনকাম ট্যাক্স-২০১৭’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হয়। তবে মন্ত্রিপরিষদ সেটি আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও পর্যালোচনা করার জন্য ফেরত পাঠায়। পরবর্তী সময়ে আরো যাচাই-বাচাই শেষে খসড়াটি পুনরায় উপস্থাপনের জন্য মন্ত্রিসভা অর্থমন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এ ছাড়া বৈঠকে ‘ফ্রেমওয়ার্ক অ্যাগ্রিমেন্ট অন দ্যা এস্টাবিলশমেন্ট অব দি ইন্টারন্যাশনাল সোলার অ্যালাইয়েন্স’ অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন করে মন্ত্রিসভা।

২০০৪ সালের ২১ আগস্টের এইদিনে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী শান্তি সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী ও আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতা-কর্মী নিহত হন। আহত হন আরো ৪০০ জন। তবে অল্পের জন্য বেঁচে যান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় কয়েকজন নেতা। আহতদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি।