মানিকগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার মা হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

12

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার হিজুলীয়া গ্রামে পুলিশ কর্মকর্তার মা হত্যার মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন ও ২০ হাজার টাকা করে জরিসভানা অনাদায়ে আরো ৫ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং এক জনকে খালাস দিয়েছেন মানিকগঞ্জ সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচার মিজানুর রহমান খান।

মঙ্গলবার সকালে জনাকীর্ণ আদালতে  আবু সাইদ ও সংকর এ দুইজন আসামীর উপস্থিতিতে রায় দেয়া হয়। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৫ জুলাই রাতে পুলিশ কর্মকর্তা এটি এম মনিরুজ্জামানের মা তাজাল্লিয়া বেগম আলোকে নিহতের ছোট মেয়ের স্বামী আবু সাইদ তার শ্বাশুড়ীকে জমি লিখে দেয়ার জন্য হুমকি দিয়ে আসে দীর্ঘ ধরে।

জমি না দেয়ায় নিহতের এক মাত্র ছেলে ঢাকা থাকা বাড়িতে নিহতকে একা পেয়ে আসামী ও তার দুই বন্ধু আব্দুল আল মামুন ও উজ্জলকে নিয়ে তার  শ্বাশুড়ীকে হত্যা করে। মামুন ও উজ্জল পলাতক রয়েছেন।

বিষয়টিকে ডাকাতি হয়েছে বলে প্রমাণ করার চেষ্টা করে। ঘরের স্বর্ণাংকারসহ মূল্যবান জিনিস লুট করে সংকর নামের এক স্বর্ণকারের কাছে বিক্রয় করে। পরে পুলিশ সংকরের কাছ থেকে স্বর্ণাকার উদ্ধারসহ আসামীদের গ্রেফতার করে।

ঘটনার দিন সন্ধ্যায় নিহতের মেঝ মেয়ের স্বামী মোঃ আওয়াল খান বাদী হয়ে ঘিওর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পরের দিন পুলিশ সাইদকে ঘিওর থেকে গ্রেফতার করে। তার স্বীকার উক্তির পর অন্যান্যদের মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করে।

পুলিশ ২০১৪ সালের ২৪ এপ্রিল আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। ১৮জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহনের পর আদালত এই রায় দেয়। রাষ্টপক্ষের আইনজীবী ছিলেন পিপি মো: আব্দুল সালাম, আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো: দেলোয়ার হোসেন ।