টাইটানিকের জ্যাক–রোজ দুজনই বাঁচতে পারতো

49

হলিউড সিনেমা পছন্দ করেন বা না করেন, জেমস ক্যামেরনের টাইটানিক দেখেননি এমন দর্শক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। সিনেমার শেষের দিকে প্রেমিকা রোজকে (‌কেট উইনসলেট)‌‌ ছেড়ে প্রেমিক জ্যাকের (‌লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও)‌ পানি তলিয়ে যাওয়ার দৃশ্য মন ছুঁয়ে যায়নি,এমনটা বোধহয় কেউই নেই।

সেই দৃশ্য নিয়ে ২০ বছর পরে এখনও চলে আলোচনা। ফিল্মে দেখানো হয়েছিল একটা কাঠের টুকরোকে সম্বল করে ভেসে থাকা সম্ভব ছিল না দু’‌জনের। তাই প্রেমিকার প্রাণ বাঁচাতে আত্ম বলিদান দিয়েছিল নায়ক জ্যাক। সম্প্রতি এই তথ্যকে উড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া তিন স্কুলপড়ুয়া।

রীতিমতো অঙ্ক কষে তারা দেখিয়ে দিয়েছে, একটু বুদ্ধি খাটালেই ওই একটাই কাঠের টুকরো থেকে জ্যাক ও রোজ দু’‌জনেই বাঁচতে পারত। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডের ওয়েস্টমিনস্টার স্কুলের অ্যাবিগ্যাল উইকস, ক্রিস্টি জ্যাং এবং জুলিয়া ডামাটো বলছে, ‘ পানির যা প্লবতা (‌কোনও তরল কোনও ভাসমান বস্তুতে যে ঊর্ধ্বমুখী বল প্রয়োগ করে)‌ ছিল তা নিতান্ত কম নয়।

তাই ওই সময় আশপাশে যে অসংখ্য কাঠের টুকরো ভেসে বেড়াচ্ছিল, তারমধ্যে থেকে কোনও একটা বড় মাপের টুকরো জ্যাক বেছে নিত একহাতে ধরার জন্য এবং আর এক হাতে রোজের কাঠের টুকরোতে ভর রাখত, তাহলে জ্যাকের ওজনের চাপ ভাগাভাগি হয়ে যেত।

সেটা সম্ভব যদি নাও হতো, তাহলে জ্যাক কোনও লাঠির মতো অংশ ধরে রাখত, আর এই লাঠির আর একটা প্রান্ত থাকত রোজের হাতে তাহলেও তার জীবন বাঁচত। তবে এক্ষেত্রে তাকে লাইফজ্যাকেট পরে থাকতে হতো।’‌ তিন খুদে ছাত্রীর বাতলে দেওয়া রাস্তা অনুযায়ী জলে নেমে বিষয়টা পরীক্ষা করে দেখেছেন তিন বিজ্ঞানী। বলাই বাহুল্য সফলই হয়েছেন ভেসে থাকতে।