অকার্যকর কোটি টাকা ব্যয়ের ট্রাফিক সিগন্যাল লাইট, হাতের ইশারায় চলছে গাড়ি

12

সাইদুর রহমান আবির:

রাজধানী ঢাকার সড়কগুলোতে এখনো ট্রাফিক পুলিশের হাতের ইশারায় চলছে গাড়ি। আর কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে বসানো ট্রাফিক সিগন্যাল লাইট পরে আছে অকার্যকর অবস্থায়।

এগুলোর যান্ত্রিক ত্রটি এবং প্রশিক্ষণের অভাব থাকায় ব্যবহার করতে সমস্যা হয়েছে জানিয়ে দ্রুত এর ব্যবহার শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ট্রাফিক পুলিশ।

আর অন্যদিকে গাড়ি থামানো নিষেধ, ট্রাফিক পুলিশের এমন সাইনবোর্ডের সামনেই থামিয়ে যাত্রী ওঠানামা করায় চালকরা, যা যানযট সৃষ্টির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এ নিয়ে এবারের আয়োজন।

বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে ঢাকা আরবান ট্রান্সপোর্টের আওতায় ২০০৫ সালে রাজধানীর ৫৯ টি সড়কের মোড়ে স্বয়ংক্রিয় ট্রাফিক সিগন্যাল লাইট স্থাপনের কাজ শুরু হয়ে ২০০৯ সালের ২২ নভেম্বর পরীক্ষামূলকভাবে এর প্রাথমিক প্রকল্প শেষ হয় এবং তা সড়কে চালু করা হয়।

স্বয়ংক্রিয় সিগন্যাল বাতি পদ্ধতি স্থাপনে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় হলেও দুই বছরের মাথায় এসে তা অকার্যকর হয়ে পরে।

যান্ত্রিক ত্রটি, বিদ্যুৎ না থাকা এবং চালকরাসহ বিভিন্ন অজুহাতে ব্যবহার করা হচ্ছে না এ সিগন্যাল লাইট। আর যানবাহন চলাচল ট্রাফিক পুলিশের হাতের ইশারার উপরই নির্ভরশীল। রাজধানীতে চলাচলরত যানবাহন চালকরাও এই সিগন্যাল লাইট চালুর পক্ষে মত দেন।

শীঘ্রই নতুন করে সংযোজন এবং সংস্কার করে রাজধানীর সড়ক গুলোতে এ ব্যবস্থা চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন ট্রাফিক পুলিশের যুগ্ম কমিশনার। যানযট নিরসনে সকল পদক্ষেপ ট্রাফিক পুলিশের হাতে নিয়ে ডিজিটাল সিষ্টেমে কেন্দ্রীয়ভাবে যানযট নিয়ন্ত্রন করার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

যানযট নিয়ন্ত্রন করা যেখানে চ্যালেঞ্জের বিষয়, সেখানে চলছে ট্রাফিক আইন না মানার প্রতিযোগীতা। গাড়ি না থামাতে ট্রাফিকের সাইনবোর্ড বসানো থাকলেও, সেখানেই নিশ্চিন্তে যাত্রী ওঠানামা করানো হচ্ছে।

বিস্তারিত এই ভিডিওটি দেখুন: