নারীসহ চার অপহরণকারী আটক ফরিদপুরে 

4

ফরিদপুরের অপহরণের তিন দিন পর অপহৃত সামসুল হক মোল্লাকে শহরের আলীপুরের একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এসময় নারীসহ চার অপহরণকারীকেও আটক করা হয়।

র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক জানান, গত ২ ডিসেম্বর একদল অপহরণকারী সামসুলকে প্রথমে শহরের গোয়ালচামট এলাকায় পরে আলীপুরের একটি বাড়িতে আটক করে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে।

এ ঘটনায় অপহৃত ব্যাক্তির স্বজনরা কোতয়ালী থানায় জিডি করলে, র‌্যাব অভিযান চালিয়ে আজ অপহৃতকে উদ্ধার করা হয়।

সোমবার (০৪ ডিসেম্বর) দিনভর অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। অপহরণ চক্রের চার সদস্য হলেন- খন্দকার মাহফুজ আলম মুন (২৬), খন্দকার সুমন (২৭), রেখা বেগম (২৫) এবং আবু তালেব সরদার (৪৫)।

এর মধ্যে মুন, রেখা ও সুমনের বাড়ি ফরিদপুর শহরে। আর অপহরণকারী তালেবের বাড়ি পাবনা জেলার সুজানগরে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ২ ডিসেম্বর (শনিবার) সকালে নগরকান্দা নিজ বাড়ি থেকে চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার পথে সামসুল হককে তুলে নিয়ে যায় মুন ও সুমনসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জন।

পরে সামসুলের মোবাইল ফোন থেকে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে কল করে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। এ ঘটনায় অপহৃতের পরিবার ওইদিনই ফরিদপুর কোতয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। একই সঙ্গে অপহৃত সামসুলকে উদ্ধারের জন্য র‌্যাবের সহযোগিতা কামনা করেন তারা।

এদিকে অপহৃত সামসুল হক মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায়ের জন্য তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে রেখার সঙ্গে নগ্ন ছবি ধারণ করা হয়েছে ক্যামেরায়। তাকে মারধর করেছে অপহরণকারীরা।

এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে আটকদের বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় একটি অপহরণ মামলা করেছেন বলে জানা গেছে।