MYTV Live

ঢাকার গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে বাস রুট রেশনালাইজেশনের উদ্বোধন

রাজধানী ঢাকার গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে বাস রুট রেশনালাইজেশনের (বিআরআর) অংশ হিসেবে ‘ঢাকা নগর পরিবহন’ সেবা চালু হয়েছে।

রোববার মোহাম্মদপুরে এক অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এর উদ্বোধন করেন। এসময় ঢাকার দুই মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ও আতিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনের পর টিকিট কেটে ফু‌লে ফুলে সাজা‌নো দ্বিতল বা‌সে যাত্রী‌দের স‌ঙ্গে অনুষ্ঠানস্থল থেকে ধানম‌ন্ডির শংকর পর্যন্ত আসেন দুই মেয়র।

গ্রিন ক্লাস্টার নামে কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত প্রায় ২১ কিলোমিটার রুটে রোববার সকালে পরীক্ষামূলকভা‌বে ৫০‌টি সবুজ রঙের বাস চালু করা হয়, যা‌তে প্রতি কি‌লো‌মিটা‌রে দুই টাকা ২৮ পয়সা ভাড়া দিতে হবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা আনাই আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। সড়কে যদি শৃঙ্খলা না আনতে পারি সকল উন্নয়নের ম্লান হয়ে যাবে। আগামী বছর মেট্রোরেল, পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেলসহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রজেক্ট প্রকল্পের উদ্বোধন করা হবে। ঢাকা শহরের মোটরসাইকেলের অনেক শৃঙ্খলা এসেছে। তবে রাজনৈতিক কর্মীরা মোটরসাইকেলে নিয়ম মানতে চান না।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, এটা আমদের জন্য নতুন দিগন্ত। ঢাকা শহরে ৯ হাজার ৭২৭টি বাস চলাচল করে। সড়কে একটি বাসের সঙ্গে আরেকটি বাসের প্রতিযোগিতা তৈরি হয়। মাস শেষে কোনো লাভ হয় না মালিকেদের। এর ফলে দুর্ঘটনা বাড়ছে, যানজট তৈরি হচ্ছে। সড়কের শৃখলা আনতে গেলে বাস রুট রেশনালাইজেশনের কোনো বিকল্প নেই। তবে এটা বাস্তবায়ন করা আমাদের জন্য অনেক চ্যালেঞ্জ হবে। 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, আমরা প্রায়ত মেয়য় আনিসুল হকের স্বপ্নে পূরণে শুভসূচনা করতে যাচ্ছি। গাড়ির চালকেরা এতদিন গালি পেয়েছে, অবজ্ঞা হতে হয়েছে। আজ তারা সম্মান পেয়েছে। তারা এখন মাসিক বেতন পাবে। এখন থেকে এভাবে বাস সেবা চলবে। সড়কে বাসের কোনো প্রোতিযোগিতা বা ঠেলাঠেলি করা যাবে না। কোনো অনুমোদনহীন বাস আর চলতে পারবে না। যে বাস যে রুটের পারমিট নিয়েছি সেই বাসকে সেই রুটে চলতে হবে। অন্য কোনো রুটে চলতে পারবে না। 

বাসের রুট পুনর্বিন্যাসের পরিকল্পনা ২০০৪ সালের। ২০১৫ সালে শুরু হয় বাস্তবায়নের কাজ। বিআরআর পদ্ধতিতে একটি রুটের সব বাস একই রঙে একই কোম্পানির অধীনে চলে। ফ‌লে বাসে বাসে প্রতিযোগিতা হয় না। এক বাস আরেক বাসকে ওভারটেক করে না। মালিকরা বিনিয়োগের অনুপাতে মুনাফা পান। ট্রান্সসিলভা কোম্পানির ২০টি এবং সরকারি পরিবহর সংস্থা বিআরটিসির ৩০টি দ্বিতল বাস নিয়ে চালু হয়ে‌ছে বিআরআর।

Related Articles

Stay Connected

22,878FansLike
3,122FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles