MYTV Live

সয়াবিন তেল নিয়ে ডিলার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা কারসাজি করেছেন: বাণিজ্যমন্ত্রী

সয়াবিন তেল নিয়ে ডিলার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা কারসাজি করেছেন বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভোজ্যতেলের উৎপাদকদের সঙ্গে বৈঠকের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলেনে এ কথা বলেন তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, আমরা রমজান মাসে অ্যাপিলটা (অনুরোধ) করেছিলাম যে দয়া করে দাম বাড়াবেন না। সেই অ্যাপিল করা আমার বোধ হয় ঠিক হয়নি।

কারণ তারা (ব্যবসায়ীরা) কথা রাখেননি। তিনি আরো বলেন, এই দাম বাড়ার কথা ছিল রোজার আগেই। কিন্তু সরকার চায়নি রোজায় তেলের দাম বাড়ুক। সেই সময়ে কিছু অসাধু রিটেইলার ঘরে তেল মজুত করে রেখেছিল। সেজন্য দাম বাড়ানোর পরও বাজারে তেলের ক্রাইসিস হলো।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তেলের সিন্ডিকেটের কোনো প্রমাণ পাইনি। তবে রিটেইলার, ডিলাররা সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর সুযোগটা নিয়েছে। আমরা চেষ্টা করবো রিটেইলার থেকে ডিলার পর্যায়ে কেউ যাতে সুযোগ নিতে না পারে। লাখ লাখ ডিলারের সিন্ডিকেট করার সুযোগ নেই।

তিনি আরও তবে বাজারে সয়াবিন তেলের সংকট কেন তৈরি হলো, আমরা তা খুঁজে পেয়েছি। এই কারচুপি বড় গ্রুপের কেউ করেনি। করেছে ডিলার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। যারা কারসাজি করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। ডিলারশিপ বাতিল করতে মালিকদের বলেছি। জেলা–উপজেলা পর্যায়ে অভিযান চলবে।

খুচরা ও পাইকারী পর্যায়ের অনেক ব্যবসায়ী এই পরিস্থিতির সুযোগ নিচ্ছেন। তারা ইতোমধ্যে চিহ্নিত। যখন যেখানে প্রয়োজন সেখানে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং হবে। প্রয়োজনে র‌্যাবের সহযোগিতা নেওয়া হবে।’

আগামীতে তেলের দাম বাড়বে কিনা এমন প্রশ্নে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সত্য যতই কঠিন হোক তা মেনে নিতে হবে। আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি বিবেচনায় দেশে তেলের মূল্যবৃদ্ধি মেনে নিন। আমরা আন্তর্জাতিক বাজার মনিটর করবো। আশপাশের দেশগুলো দেখে বিবেচনা করবো সবকিছু। যতদূর দাম কমানো যায় তার চেষ্টা করবো।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে গেলো কয়েকদিন ধরেই তেলের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাগে আন্তর্জাতিকভাবেই যে তেলের দাম বেড়েছে, প্রতিবেশী ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানে তেলের দামের একটি তুলনামূলক চিত্র কেউ দেখাচ্ছেন না। আন্তর্জাতিক বাজারে গত এক মাসে তেলের দাম কী পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে তা কেউ বলছেন না। ’

তিনি বলেন, এলসি কত দামে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ক্লিয়ার করলো সেটা ধরে তেলের দাম নির্ধারণ হয়। আজকে ২৫০ টাকা হয়েছে সেটা ধরে কিন্তু দাম নির্ধারণ হচ্ছে না। আজকের দামে যদি ফিক্স করতাম তাহলে গতকাল টনপ্রতি তেলের দাম ছিল ১৯৫০ ডলার।

আগামী জুন মাস থেকে ১ কোটি পরিবারকে টিসিবির পণ্য দেওয়া হবে বলেও জানান বা

Related Articles

Stay Connected

22,878FansLike
3,312FollowersFollow
19,600SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles